কুলাউড়ায় স্বজনদের ফেলে যাওয়া বৃদ্ধার লাশ ঘর থেকে উদ্ধার!

Sharing is caring!

স্টাফ রিপোর্ট ::
কুলাউড়ায় আলোচিত মনাফ হত্যা মামলার গ্রেফতারকৃত আসামী আসামী শাহিনুর রহমান শাহিদ ও আতিকুর রহমান চান মিয়ার মা জুবেদা খাতুন (৮০) এর লাশ বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। ধারনা করা হচ্ছে গত ৬ দিন থেকে বাড়িতে অন্য কোন লোকজন না থাকায় অনেকটা না খেয়ে আর শীতে তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন। সোমবার ২১ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি উপজেলার ভুকশিমইল ইউনিয়নের মীরশঙ্কর গ্রামের মৃত মাহমুদ আলীর স্ত্রী।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গত ১৫ ডিসেম্বর রাতে কুলাউড়া আলোচিত ব্যবসায়ী মানাফের লাশ উদ্ধার এবং আসামী শাহিদ ও চান মিয়াসহ ৬জনকে গ্রেফতারের পর নিজেদের জীবন বাচাতে বৃদ্ধ মাকে একা বাড়িতে ফেলে রেখে পরিবারের মহিলারা সন্তানদের নিয়ে গা ঢাকা দেয়। ওইদিন থেকে পাড়া-প্রতিবেশীও তাদের বাড়িতে আসা-যাওয়া বন্ধ করে দেন। অসুস্থ বৃদ্ধা জুবেদা খাতুন একাই ঘরে থাকতেন।

সোমবার সকাল থেকে বৃদ্ধা জুবেদা খাতুনের নড়াচড়া না পেয়ে এবং গরু-ছাগলের ডাকাডাকির শব্দ শুনে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ গিয়ে ঘরের দরজা খোলে ভেতরে বৃদ্ধা জুবেদা খাতুনের অনেকটা পচা লাশ বিছানার উপর পড়ে থাকতে দেখেন।

কুলাউড়া থানার এসআই হাবিব জানান, বৃদ্ধা জুবেদা খাতুন ছিলেন শ্বাস কষ্টের রোগী। ব্যবসায়ী মনাফের লাশ উদ্ধার ও আসামীদের আটকের দিন থেকে বৃদ্ধাকে একা রেখে বাড়ির মহিলারাও নিরুদ্দেশ। ধারণা করা হচ্ছে সবাই বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ায় গত ৬দিন থেকে না খেয়ে, সেই সাথে শ্বাস কষ্টে অথবা হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন তিনি।

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিনয় ভূষণ রায় জানান, বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, কুলাউড়া উপজেলা শহরের মিলিপ্লাজার ব্যবসায়ী আব্দুল মনাফ (৩২) এর অর্ধগলিত লাশ ১৫ ডিসেম্বর মঙ্গলবার রাতে আনুমানিক ১১টায় চান মিয়ার ঘরের পেছনে প্রায় ৬ফুট মাটির নিচে পুতে রাখা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।#

২১০ Views

Sharing is caring!

error: Content is protected !!